মাইক্রোসফ্ট সিকিউরিটি এসেনশিয়াল্স এর নতুন ভার্সন!{বেটা}

মাইক্রোসফ্ট সিকিউরিটি এসেনশিয়াল্স এন্টিভাইরাস সম্পর্কে নতুন করে তো কিছুই বলার নাই! মাইক্রোসফ্টের রিলিজকৃত এই এন্টিভাইরাসটি বেশ সাড়া ফেলেছে এন্টিভাইরাস জগতে! এর প্রধান বৈশিষ্ট্য ভাইরাস ডিটেকশনের ক্ষমতা অপেক্ষাকৃত বেশী, এওয়ার্ড উইনিং এবং লাইটেনিং ফাস্ট! উইন্ডোজকে একটুও স্লো করে না বলে অনেকের কাছেই সবচেয়ে প্রিয় এন্টিভাইরাস মাইক্রোসফ্ট সিকিউরিটি এসেনশিয়াল্স! এ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত দেখতে চাইলে উইকিপিডিয়াতে দেখুন।

হ্যা.. এবার আসা যাক আসল কথাতে! জনপ্রিয় এই এন্টিভাইরাসের পরবর্তী ভার্সন নিয়ে হাজির হয়েছে মাইক্রোসফ্ট কর্পোরেশন! উদ্দেশ্য হল এই এন্টিভাইরাসের ফিচারের আরো কিছু উন্নতি করে জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছানোর! তো নতুন এই ভার্সন বেটা পর্যায়ে রয়েছে এখনও!

নতুন ফিচারসমূহ

চারটি নতুন ফিচারকেই প্রাধান্য দিচ্ছে মাইক্রোসফ্ট! নিচে এগুলোর অল্পবিস্তর বর্ণনা সহ পেশ করছিঃ

Microsoft Security Essentials Beta Screenshot

Windows Firewall integration – During setup, Microsoft Security Essentials will now ask if you would like to turn the Windows Firewall on or off.

Enhanced protection for web-based threats – Microsoft Security Essentials now integrates with Internet Explorer to provide protection against web-based threats.

New protection engine – The updated anti-malware engine offers enhanced detection and cleanup capabilities with better performance.

Network inspection system – Protection against network-based exploits is now built in to Microsoft Security Essentials.

ডাউনলোড

ডাউনলোড করতে হলে আপনাকে সর্বপ্রথম মাইক্রোসফ্ট কানেক্ট ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। সফলভাবে রেজিস্ট্রেশন করলে আপনাকে মাইক্রোসফ্ট সিকিউরিটি এসেনশিয়ালস ডা্উনলোডের নির্দেশিকা দেওয়া হবে এবং ডাউনলোড করতে পারবেন। মনে রাখতে হবে এইটা একটা লিমিটেড এবং বেটা ভার্সন। ফলে এক-আধটু বাগ থাকতে পারে!

“মাইক্রোসফ্ট সিকিউরিটি এসেনশিয়াল্স এর নতুন ভার্সন!{বেটা}”-এ 17-টি মন্তব্য

  1. আপনি যে ১৩/১৪ বছর বয়সের একজন এক্সপার্ট- তথ্যটি আজই জানলাম। পরিণত বয়সে না জানি আপনি আরও কতোদূর যাবেন!! দোয়া করি ভাই, ভালো থাকুন।

    • প্রফেশনালের জন্যও উবুন্টুর অগ্রগতি বেশ ভালৈ!
      তবে পুরোপুরি বিকল্প মনে হয় এখনও হতে পারে নি (একান্ত ব্যক্তিগত অভিমত)। আর ২-৩ বছরের মধ্যে যে এটি উইন্ডোজের বিকল্প হয়ে যাবে তাতে কিন্তু আমার কোনই সন্দেহ নাই!

      • প্রফেশনাল বলতে কী বোঝাচ্ছেন সেটা জানতে পারলে ভালো হত। আপনি যদি প্রফেশনাল টাইপিস্ট হন তাহলে উবুন্টু আপনার জন্য অতিরিক্ত হয়ে যাবে অনেকটা সুপার কম্পিউটারে ডস চালানোর মত ব্যাপার। ধরে নিলাম, আপনি প্রফেশনাল বলতে অ্যাডোব ক্রিয়েটিভ স্যুটে তাংফাং করাকেই বোঝান (বেশিরভাগ লোকজন সেটাই মনে করে, চুরি করে সফটওয়্যার ব্যবহার করে দেখে পাড়ার পাড়ার ঘরে ঘরে ফটোশপ দেখা যায়, সামান্য ক্রপ করতেও পোলাপাইন ফটোশপ নিয়ে কাটাকুটি করে, আর ভাবে ‘প্রফেশনাল হয়া গেলাম রে মনু’)। মজার কথা হচ্ছে অ্যাডোবে কাজ করা সত্যিকারের প্রফেশনাল লোকজন উইন্ডোজ ব্যবহার করেনা, তারা ম্যাক ব্যবহার করে। (অবশ্য নির্ভর করছে প্রফেশনাল বলতে কাদের বোঝানো হচ্ছে, বাংলাবাজারের বই প্রকাশকরাও প্রফেশনাল আবার নীলক্ষেতের ফটোকপি-প্রকাশকরাও তো প্রফেশনাল)। উবুন্টু উইন্ডোজকে টপকে এখন ম্যাকের দিকে ধাবিত হচ্ছে। বলা যায় উপরে ম্যাক নীচে উইন্ডোজ মাঝে উবুন্টু। অ্যাডোবের মত কম্পানির উবুন্টুর দিকে ঝুঁকে পড়াটা সেই ইঙ্গিতই দেয়।

    • আগের রিপ্লাইটা ভুল থ্রেডে দিয়েছিলাম দেখছি!

      যাই হোক আশিফ সাহেবের জন্য মন খারাপ করা খবর, আমাদের সরকার প্রফেশনালদের কথা চিন্তা না করে আত্মঘাতী একটা স্বিদ্ধান্ত নিয়েছে, ২০টা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাইবার ক্যাফে সেন্টার বানানো হচ্ছে যেখানে জানালার বদলে এসি লাগানো হচ্ছে … থুক্কু … উবুন্টু বসানো হচ্ছে!
      খবরটা এইখানে!

    • আপনার অবগতির জন্য একটি তথ্যঃ-
      “সাইবার নিরাপত্তা প্রতিরোধে মাইক্রোসফট-এর কম্পিউটার অপারেটিং সিষ্টেম উইন্ডোজ আর ব্যবহার করবে না গুগল। উইন্ডোজের পরিবর্তে অ্যাপলের ম্যাক অপারেটিং সিষ্টেম অথবা ওপেনসোর্স ভিত্তিক লিনাক্স অপারেটিং সিষ্টেম ব্যবহার করবে গুগল।”
      – কম্পিউটার বিচিত্রা, জুলাই ২০১০, পৃষ্ঠা নম্বর- ৭৫।

    • ভাই সাহেব মনে হয় “হাজার হাজার” প্রোগ্রাম ব্যবহার করেন (ট্র্যাক রাখেন কেমনে?)! সমস্যা নাই, আপনার মত “হাজারি” ব্যবহারকারীদের জন্য উবুন্টু একটা বিল্টইন ডিকশনারী দিয়ে দিয়েছে, ঐটার নাম “উবুন্টু সফটওয়্যার সেন্টার”। যা দরকার সেইটা এই ডিকশনারীতে লিখে সার্চ মারলেই চলে আসবে। প্রোগ্রামের নাম না জানলেও ক্ষতি নাই। আপনার যদি অডিও প্লেয়ার দরকার হয় তাহলে সার্চ অপশনে গিয়ে audio player লিখে সার্চান, প্লেয়ারের বিশাল লিস্টি চলে আসবে। ড্রইং করতে চান? drawing লিখে সার্চ মারেন সব ড্রইং সফটওয়্যারের লিস্ট চলে আসবে। মজা না!

Leave a Reply to আশিফ শাহো Cancel reply