Categories
কম্পিউটার বিষয়ক

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দিল গুগল ক্রোম

বি.দ্র. এখন যে লেখাটা আপনাদের সামনে তুলে ধরব সেই লেখাটা আমি সম্পূর্ণ আরেকজনের লেখা থেকে কপিপেস্ট করছি। এই লেখাটা মো. আমিনুল ইসলাম সজীব ২০ জুন, ২০০৯ তারিখে টেকটিউন্সের এই টিউনে লিখেছিলেন।

প্রযুক্তি পছন্দ করেন বা প্রযুক্তির খবরাখবর রাখেন অথচ গুগল ক্রোমের (Google Chrome) নাম শুনেননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কষ্টসাধ্য হবে। কেননা, গুগলের ইতিহাসের সর্বপ্রথম এই ব্রাউজার নিয়ে যথেষ্ট নাড়া তুলেছিল গুগল। প্রথম দিকে পরবর্তী প্রজন্মের ওয়েবসাইটের জন্য উপযোগী করে নির্মিত বলে দাবি করা হয় গুগল ক্রোমকে।

কিছুদিন পত্র-পত্রিকা ও ওয়েবসাইট/ব্লগে ক্রোম নিয়ে চলে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা। প্রতিনিয়ত বিবিসি, সিএনএন, গার্ডিয়ানসহ বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিগত ব্লগে পোস্ট প্রকাশিত হতে থাকে ক্রোম নিয়ে। টুইটারে হট টপিক থাকে গুগল ক্রোম (Google Chrome)। তারপর একসময় যথারীতি সব শেষ।

কিন্তু ঠিক এমনটা চায়নি গুগল। গুগলের সাম্প্রতিক পদক্ষেপ ও ক্রোমের প্রতি আচরণ দেখে বোঝা যাচ্ছে ক্রোম নিয়ে তাদের আশা একটু বেশিই। আর তাই হারিয়ে যাওয়া গুগল ক্রোমের নাম আবারও ব্যাপক আকারে ফিরিয়ে আনতে এবং শুধু প্রযুক্তি-প্রেমীদেরই নয়, বরং সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে নাড়া ফেলতে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দেয়া শুরু করলো গুগল ক্রোম!

আমরা যারা আইপিএল খেলা দেখে থাকি, তারা হয়তো লক্ষ্য করেছি খেলার মাঝে মাঝে vodafone এর ছোট ছোট কিছু বিজ্ঞাপনচিত্র প্রদর্শিত হয়। গুগল ক্রোমের (Google Chrome) বিজ্ঞাপনগুলো অনেকটা এমনই। সর্বমোট ১১টি ৩০ থেকে ৬০ সেকেণ্ডের বিজ্ঞাপনচিত্রগুলো আমেরিকা ও অন্যান্য দেশের টেলিভিশন চ্যানেলে মে ২০০৯ এর দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে প্রচারিত হতে থাকে।

উল্লেখ্য, অনলাইন জায়ান্ট গুগলের সর্ববৃহৎ ব্যবসা মূলত বিজ্ঞাপনকে ঘিরে। বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ও ব্লগে গুগল অ্যাডওয়ার্ডের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। এছাড়াও সার্চ রেজাল্ট পাতায়ও স্পন্সর্ড লিস্টিং দেখা যায়। ক্রোম রিলিজ হবার পর থেকেই ইন্টারনেটের অসংখ্য স্থানে বিভিন্ন উপায়ে ক্রোমকে প্রোমোট করতে থাকে গুগল।

ইউটিউবের হোমপেজ থেকে শুরু করে “গুগল জাপান”-এর হোমপেজ পর্যন্ত প্রায় সবখানেই গুগল ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহারের আবেদন করা হয়েছে অসংখ্যবার। কিন্তু এতেই সীমাবদ্ধ থাকেনি অনলাইন জায়ান্ট গুগল। প্রযুক্তি বিশ্বে একটি প্রবল সাড়া জাগাতে প্রথমবারের মতো বিজ্ঞাপনচিত্রের আকারে টিভিতেও দেখা গেল গুগল ক্রোমের নাম।

এর আগেও বিবিসি, সিএনএন ইত্যাদি চ্যানেলে অসংখ্যবার গুগলের বিভিন্ন প্রোডাক্ট প্রদর্শিত হয়েছে, তবে তা সংবাদ আকারে। ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে তথা বিজ্ঞাপনচিত্রের আকারে টেলিভিশন জগতে গুগলের পদার্পণ এই প্রথম। আর যাত্রার শুরুটা ক্রোমকে দিয়ে, যা দ্বারা ব্রাউজার মার্কেটেও প্রথমবারের মতো যাত্রা শুরু করে গুগল।

কোন টিম তৈরি করছে এই বিজ্ঞাপনচিত্রগুলো?
গুগলের জাপান টিম মূলত ছোট ছোট ভিডিও ক্লিপগুলো তৈরি করে। খুব আহামরি কিছু নয়। বিভিন্নভাবে বিজ্ঞাপনগুলো আপনাকে বোঝাবে আপনার ব্রাউজারের চাহিদা অনেক। আর সবশেষে এটাও বুঝিয়ে দেবে যে গুগল ক্রোমই পারে আপনার ব্রাউজারের চাহিদা মেটাতে। প্রতিটি বিজ্ঞাপনচিত্রের শেষে শুধু একটি কথাই প্রদর্শিত হয়, তা হলোঃ “Install Google Chrome” অথবা “Google Chrome – A New Way to Get Online”এবং তারপর গুগল ক্রোমের লোগো দেখিয়ে বিজ্ঞাপনচিত্রটি শেষ হয়। এভাবে সর্বমোট ১১ টি টেলিভিশন বিজ্ঞাপনচিত্র নির্মাণ ও টিভিতে প্রচারের মাধ্যমে আবারও প্রযুক্তি বিশ্বের হট টপিক হয়ে পড়ে গুগল ক্রোম।

বিজ্ঞাপনচিত্রগুলো তৈরির পর তা টেলিভিশনে প্রচার করার আগে নিউ ইয়র্ক টাইমসের হোমপেজে প্রচারিত হয়। হোমপেজের ডান দিকে expandable একটি উইজেট আকারে গুগলের ১১টি বিজ্ঞাপনচিত্র প্রকাশিত হয় যা পরদিন থেকেই টিভিতে প্রচারিত হতে থাকে।

ইউটিউবে ক্রোমের বিজ্ঞাপন চ্যানেল

ইউটিউবে গুগল ক্রোমের (Google Chrome) বিজ্ঞাপন গুলো একসাথে করে একটি চ্যানেল করা হয়েছে। যেখানে রয়েছে গুগল ক্রোম নিয়ে বেশ অনেক গুলো ক্রিয়েটিভ বিজ্ঞাপন। আপনি চাইলে একটু ঘুরেও আসতে পারেন। নিঃসন্দেহে মজা পাবেন!

কোনো প্রোডাক্ট নয়, বরং একটি বিনামূল্যে ব্যবহারযোগ্য ব্রাউজারের বিজ্ঞাপন টেলিভিশনে দেয়ার ইতিহাস এই প্রথম। তবে টেলিভিশনে গেলেও ইন্টারনেটে এখনও ক্রোমের ব্যাপক বিজ্ঞাপন চলছে। এমনকি অ্যাডওয়ার্ডস-এর মাধ্যমেও গুগল ক্রোম তাদের বিজ্ঞাপন অব্যাহত রেখেছে। আর টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দেয়ার ফলে তো প্রযুক্তি বিশ্বে এক ব্যতিক্রমী সাড়া ফেলে আলোচনার মূল বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে ক্রোম, যা বিজ্ঞাপনই বটে!

এই বিজ্ঞাপনচিত্রটি মিস করবেন না!
গুগল ক্রোমের ১১টি বিজ্ঞাপনচিত্রের সবক’টিই ইউটিউবে খুঁজলে পাবেন। একটি উদাহরণস্বরূপ বিজ্ঞাপনচিত্র যুক্ত করা হলো। মাত্র ৩৬ সেকেন্ডের বিজ্ঞাপনচিত্রটি দেখলে বুঝতে অসুবিধা হবে না ক্রোমের জন্য কী দারুণ সব বিজ্ঞাপনচিত্র নির্মাণ করেছে গুগল জাপানের টিম।

ইউটিউব থেকে দেখে নিন।

কেন এতো নাড়া?
এখনই বলা মুশকিল ক্রোম নিয়ে গুগলের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী। তবে আপাত: দৃষ্টিতে যা মনে হয়, তা হচ্ছে গুগলের ইন্টারনেটভিত্তিক বিজ্ঞাপনী-ব্যবসার উন্নতি ঘটানোই ক্রোমের মূল উদ্দেশ্য। আর গুগল তার তাক লাগানো প্রোডাক্ট গুগল ওয়েভের (Google Wave) নিয়ে বেশ বড়সড় একটা ড্রাইভ দিতে যাচ্ছে তা তো আপনাদের বল্লামই আর আপনারাও বুঝতে বাকি রাখেননি। বলা যায় ক্রোমের সাথে গুগল ওয়েভের (Google Wave) ভাল একটা যোগসূত্র আছে। এক কথা বলা যায় গুগল তার বর্তমান আর পরবর্তি সকল ওয়েব অ্যাপলিক্যাশানে ক্রোমের জন্য রাখবে পূর্ণ সাপোর্ট

তবে আজ গুগল ক্রোম যতটা ফ্রেশ, আগামী পরশু তা ততোটা ফ্রেশ নাও থাকতে পারে। তাছাড়া গুগল ক্রোমে ডিফল্ট অবস্থায় সার্চ ইঞ্জিন “গুগল” সিলেক্ট করা থাকে। অর্থাৎ, ব্রাউজারের অ্যাড্রেসবার থেকেই আপনি সরাসরি গুগল সার্চ করতে পারবেন। আর প্রায় প্রতিটি সার্চের রেজাল্টেই গুগলের বিভিন্ন বিজ্ঞাপন থাকে। আর ভবিষ্যতে যদি ব্রাউজারের কোনও কোণে লিঙ্ক বিজ্ঞাপন বসিয়ে দেয়া হয়, তাহলে গুগলের বিজ্ঞাপনী ব্যবসা কোথায় উঠবে একবার কল্পনা করে দেখুন। তবে অবশ্যই গুগলের মার্কেটিং প্ল্যান আগে থেকে অন্য কারও পক্ষে বোঝা সম্ভব হয় না।

কে জানতো, সামান্য এক ব্রাউজার – যার পোটেনশিয়াল খুবই কম – এর বিজ্ঞাপনের জন্য টেলিভিশনের স্মরণাপন্ন হবে মহারাজ গুগল!! ফলে, সবশ্রেণীর মানুষ যারা টিভি দেখেন, তারা সবাই জানতে পারলেন গুগলের একটি চমৎকার ব্রাউজার আছে যার নাম ক্রোম। এছাড়াও গুগল যেহেতু টাকা খরচ করে বিজ্ঞাপন দিয়েছে টেলিভিশনে, স্পষ্টই বোঝা যায় কোনও না কোনও বাণিজ্যিক পরিকল্পনা রয়েছে গুগলের যা অচিরেই সফল হতে যাচ্ছে।

সবমিলিয়ে এতটুকুই বলা যায় যে, খুব সাধারণ সাদামাটা ব্রাউজিংয়ের জন্য ক্রোমের বিকল্প নেই। কেননা, গুগলের আর দশটা সার্ভিসের মতোই ক্রোমও খুব simple এবং user-friendly. তবে বিপুল সংখ্যক ব্যবহারকারী এখনই পাচ্ছে না গুগল ক্রোম। কারণ, প্রচুর অ্যাড-অন ব্যবহার করে অভ্যস্ত হয়ে যাবার পর একজন ব্যবহারকারীর ক্রোমের প্রতি ঝুঁকে পড়ার পেছনে যথেষ্ট কারণ তো থাকতে হবে। অর্থাৎ, secondary ব্রাউজার হিসেবে ক্রোম ব্যবহার করতে পারেন। একমাত্র ব্রাউজার হিসেবে নয়।

ব্যবহার করে দেখুন
অনেক তো জানলেন ক্রোম নিয়ে। এবার একটু ব্যবহার করেই দেখুন যদি আগে করে না থাকেন। ক্রোম ব্যবহারের পর আপনার অনুভূতি এই পোস্টে আমন্ত্রিত।

আর আমি ক্রোম ধুমিয়ে ব্যবহার করছি।

By সাইফ দি বস ৭

পুরো নাম সাইফ হাসান। ছোটকাল থেকেই প্রযুক্তি, কম্পিউটার সম্পর্কিত বিষয়ে প্রচুর আগ্রহ এবং কৌতূহল। বর্তমানে কর্মরত আছেন উইডেভসের প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে। হিউম্যান সেন্টার্ড ডিজাইন, প্রোডাক্ট ম্যানেজমেন্ট এবং এজাইল প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্টেই ব্যস্ত থাকতে পছন্দ করেন।

মন্তব্য করুন