অভ্র সাপোর্টার টিশার্ট! আপনার লাগবে নাকি?

কিছুদিন ধরেই অভ্র সম্পর্কে বিশিষ্ট এক আইটি স্পেশালিস্ট(!) এর বক্তব্য নিয়ে পুরো অনলাইন ওয়ার্ল্ডকে গরম করে ফেলেন তিনি… এর প্রতিবাদে বিভিন্ন ব্লগে, ফোরামে, ফেসবুকে, টুইটারে কোনখানেই এর প্রতিবাদ বাদ যায় নি! প্রতিবাদস্বরূপ বিভিন্ন ফোরাম, ব্লগে অভ্র সম্পর্কিত বিভিন্ন পোস্টার ব্যানার লাগানো হয়।

সেই ভাবনাকে কেন্দ্র করেই আরেকটু এগিয়ে যাওয়ার চিন্তা করা হয়েছে।

এই হিসেবে অভ্রর জন্য টিশার্ট তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছে। উদ্যোগটি নিয়েছে এদেশের জনপ্রিয় ফোরাম রংমহল

নীচে টিশার্টের মডেলগুলো দেওয়া হল:

কালর উপলে লাল
কোডনেম: অভ্র ৬
কালর উপলে লাল

লালের উপরে সাদা
কোডনেম: অভ্র ৯
লালের উপরে সাদা

লালের উপরে কালো
কোডনেম: অভ্র ১০
লালের উপরে কালো

কালোর উপরে হলুদ (Avro 7)
কোডনেম: অভ্র ৭
কালোর উপরে হলুদ (Avro 7)

শাদার উপরে খয়েরী
কোডনেম: অভ্র ১১
শাদার উপরে খয়েরী

শাদার উপরে হলুদ
কোডনেম: অভ্র ১২
শাদার উপরে হলুদ

অন্যান্য:
অন্যান্য হিসেবে এই ডিজাইনটা অনেকেই পছন্দ করেছেন। এটিও হতে পারে আপনাদের পছন্দ!
লালের উপর ঘুড়ি

কিভাবে পাবেন???
পাওয়ার জন্য একটি ফরম আপনাকে পূরণ করতে হবে।
এখানে আবেদন ফর্মটি দয়া করে পূরণ করুন।
এখানে একবারে একটি টিশার্টের জন্য আবেদন করতে হবে।
অন্যান্য বিভাগের গেন্জিটার জন্য ফর্মে অন্যান্য সিলেক্ট করে “লালের উপরে ঘুড়ি” লিখুন।

দাম কত?
একটি টিশার্টের দাম বর্তমানে ১০০ টাকা ধরা হয়েছে। নিশ্চয়ই খুব বেশী না? কি বলেন? তবে এর সাথে পরিবহন খরচ অর্থাৎ কুরিয়ারে পাঠানোর টাকা এড হবে। অর্থাৎ সর্বসাকুল্যে ১৩০-১৪০ টাকা (স্থানভেদে কম বা বেশী হতে পারে) হবে।

সাইজ
ছোট, মিডিয়াম, বড় ও অতিরিক্ত বড় এই চারটি সাইজে পাওয়া যাচ্ছে।

আপনার হাতে গেন্জি:
আপনার হাতে গেন্জি পৌঁছানোর জন্য একটি ভাল ব্যাবস্থাপনা গ্রহণ করা হয়েছে। এজন্য আপনাকে ফরম পূরণ করে মোবাইলে ফ্লেক্সি করতে হবে। ফর্ম পূরণ করার পর নিশ্চিতকরণ মেইলে এই নম্বর আপনারে দেওয়া হবে। সুতরাং ঘরে বসেই পেয়ে যান অভ্রর গেন্জি!!!

“অভ্র সাপোর্টার টিশার্ট! আপনার লাগবে নাকি?”-এ 34-টি মন্তব্য

    • আপাতত কুরিয়ারেই শুধু পাওয়া যাবে। পরবর্তীতে কোনখানে গেন্জির ডাইরেক্ট বিক্রি শুরু হলে জানতে পারবেন।

      • আমার আসোলে অতিরিক্ত অতিরিক্ত অতিরিক্ত বড় (xxxL) সাইজ দরকার! ওটা কি আপনারা অতিরিক্ত বড় (xL) সেগমেন্টে কভার করছেন?

        • হুমম… স্পেশার অর্ডার মনে হয়। আপনি [email protected] এই মেইলে আপনার অর্ডারটা কথা বলুন। আশা করছি পাবেন।

          Update:
          @ শাহেনশাহ সিমন
          জ্বী হ্যা… মাত্র খবর নিয়ে জানতে পারলাম অতিরিক্ত বড় মানেই XXXL. 🙂

  1. @সাইফ
    যারা এই উদ্যোগ নিয়েছে তাদেরকে সাধুবাদ। আপনি কি জানেন কারা এই উদ্যোগ নিয়েছেন? অনুগ্রহ করে আমাকে জানাবেন।

    তারা কয়টি টিশার্ট তৈরি করেছেন?
    কোথা থেকে করেছেন?

    ওনাদের যদি আপত্তি না থাকে তাহলে আমাদের বনানীস্থ শোরুমে তারা তাদের টিশার্ট রাখতে পারেন (অবশ্যই তারা তাদের ন্যায্য মূল্য পাবেন)।

    অনুগ্রহ করে আপডেট জানাবেন

    • @সাইফ
      যারা এই উদ্যোগ নিয়েছে তাদেরকে সাধুবাদ। আপনি কি জানেন কারা এই উদ্যোগ নিয়েছেন? অনুগ্রহ করে আমাকে জানাবেন।

      জ্বী হ্যা জানি … কারা এই উদ্যোগ টি নিয়েছেন। উদ্যোগটি নিয়েছেন রংমহল ফোরামের এডমিন ভবঘুরে ভাই aka আকাশ ভাই। আর সকল ডিজাইনের কাজ করেছেন ঐ
      ফোরামেরই মামুন সৃজন ভাই।

      তারা কয়টি টিশার্ট তৈরি করেছেন?
      কোথা থেকে করেছেন?

      মোট প্রায় ৪০০-৪৫০ টিশার্টের অর্ডার উনারা পেয়েছন।
      কোথা থেকে করেছেন তা জানি না!

      ওনাদের যদি আপত্তি না থাকে তাহলে আমাদের বনানীস্থ শোরুমে তারা তাদের টিশার্ট রাখতে পারেন (অবশ্যই তারা তাদের ন্যায্য মূল্য পাবেন)।

      এ সম্পর্কে তো আমি কিছু জানি না … আপনি ওনাদের সাথে যোগাযোগ করে দেখতে পারেন।

      • সাইফ, টিশার্ট বিষয়ক কার্যক্রমে আপনার অবদানকে কেন অস্বীকার করছেন। এ বিষয়ে যেকোন ধরনের সিদ্ধান্ত দেবার অধিকার/ক্ষমতা আপনার আছে।

        @ আশাবাদী: আপনার এ অফারের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আসলে আমরা এমন কিছু ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান খুজছি যারা এই প্রয়াসকে মন থেকে সহযোগিতা করতে চায়। বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের সাথে আমাদের কথা হয়েছে। তবে তাদের বেশীরভাগই এ সুবিধা দেবার বিনিময়ে তাদের লাভ খুজছে। যেহেতু এটা কোন ব্যবসায়িক উদ্যোগ নয়, গ্রাহকের কাছ থেকে যেহেতু শুধুমাত্র খরচের টাকাটাই নেয়া হবে সেখানে ঐ সমস্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে লাভ কোথা থেকে দেয়া হবে। আপনি যদি আপনার প্রতিষ্ঠানে টিশার্টগুলো রেখে অভ্র’র জন্য এতটুকু করেন তবে সবারই উপকার হবে বলে মনে করছি।

        • মামুন ভাই,
          এখানে অভ্রের প্রচারের জন্য নিজেদের মুনাফার কিছু নেই “অভ্রের পাশে আছি” এটা নিজেই একটা আন্দোলনের মতো হয়ে গেছে। আমি নিজে অভ্র ব্যবহার না করলেও আমি অভ্রের পাশে আছি (আগে লিনাক্সে অভ্র না থাকায় আমি শুরু থেকেই প্রভাতে অভ্যস্থ। এখন আর ব্যবহার করতে পারি না :P)

          আরেকটা বিষয় এই প্রজেক্ট থেকে অভ্রের মামলার জন্য ফান্ড রেইজের কোন চিন্তাভাবনা করেছেন কি? আমি মেহেদী ভাইয়ের হয়ে কোনকিছু বলতে পারি না তবে আমার মনে হয় না এটা খারাপ হয়। কেউ যোগাযোগ করে দেখতে পারেন তার সাথে।

          যাই হোক, আপনি যদি shahriar(at)linux(dot)org(dot)bd অথবা tariq086(at)gmail(dot)com ঠিকানায় ইমেইল করতেন তাহলে সুবিধা হতো।

          আশা করি শীঘ্রই আপনার কাছ থেকে ইমেইল পাবো।

          • দ্রুত জবাব পেয়ে ভাল লাগছে। মেহদী হাসান খান’র সাথে আমার এ বিষয়ে সামান্য কথা হয়েছে। তবে আমাদের এ উদ্যোগের পাশাপাশি সামহোয়ারইনব্লগের মাহমুদ হোসেন ভাই নিজ উদ্যোগে কিছু একটা করার চেষ্টা করছেন। এ বিষয়ে মেহদী হাসান খানের সাথে হুনার মন্দ’র কথোপকথনটা (http://www.somewhereinblog.net/blog/HunarManda/29156014#c4478276) দেখতে পারেন।

            অভ্র’র পক্ষে যেমন আমরা চিৎকার করছি, তেমনি চুপিসারে অভ্রের বিপক্ষেও অনেকে আছেন যা সম্পর্কে কিছুটা ধারণা পাচ্ছি যখনই উপরিউক্ত টিশার্টের আবেদন ফরমের আবেদনগুলো দেখছি তখনও। তাই আপাতত টিশার্টের খরচের অতিরিক্ত টাকা নিয়ে কারো কথার প্যাঁচে পড়তে চাইছি না। এমনিতেই অনেকে প্রশ্ন করছেন, টিশার্ট সরবরাহের আগেই কেন টাকা নেয়া হবে, কিন্তু একথা অনেকেই চিন্তা করছেন না, যেহেতু টিশার্টগুলোর জন্য আলাদা কোন ফান্ড বা টাকার উৎস নেই; সেহেতু এত টাকার সংস্থান কিভাবে হবে? (!)

            আমি গত শুক্রবারে আর্ধেক ঠিকানা নিয়ে বনানীতে আপনার সাথে দেখা করার জন্য কয়েকটা উদ্দেশ্যে গুছিয়ে নিয়ে গিয়েছিলাম। তার মধ্যে এই অভ্র’র টিশার্ট আপনার প্রতিষ্ঠানে রাখার জন্য অনুরোধ করাও একটি। অনেক ঘুরাঘুরির পরও খুজে না পেয়ে ফিরে এসেছি। সে যাই হোক। আপনার জিমেইলে একটা ছোট মেইল করেছি এবং জবাবের অপেক্ষায় পেজটা ওপেন করেই রেখেছি।

          • কোন মুনাফার চিন্তা আপাতত মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলা উচিৎ! মানুষজন এখনি যা বলা শুরু করেছে (মাশাল্লাহ!)

            যত তাড়াতাড়ি সম্ভব প্রিন্ট করে মানুষজনের নিকট পৌছানোর ব্যাবস্থা করা উচিৎ! নাহলে পরে কপালে খারাবি আছে!

          • সৃজন ভাই আপনাকে ইমেইল করেছিলাম কিন্তু এখনও কোন আপডেট পেলাম না আপনাদের তরফ থেকে।

            শীঘ্রই জানাবেন।

          • প্রথমেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি, দ্রুত জবাব পাওয়া সত্বেও রিপ্লাই না দেবার জন্য। আমি ভেবেছিলাম, তৈরী টিশার্টগুলো একেবারে তৈরী অবস্থায় নিয়ে গিয়ে একটা সারপ্রাইজ দেবো কিন্তু উল্টো আমি নিজেই গ্যাঁড়াকলে পড়ে সারপ্রাইজড হয়ে গেছি

            একটা কথা আছে, যেখানে বাঘের ভয় সেখানেই সন্ধ্যা হয়। টিশার্ট প্রিন্ট করাতে ঢাকায় গেলাম, ভাবলাম কাজ শেষে এমিগোস ক্লথিং-এ রাখার জন্য আপনাকে কয়েকটা দিয়ে আসবো। কাজ শেষে আমার সেলফোন থেকে দেখি সব মেইল ওপেন হয় কিন্তু আপনার মেইলটা ওপেন হচ্ছে না 🙁 কি করা যায়? গেলাম ক্যাফেতে। গিয়ে মেইল থেকে নাম্বার বের করলাম। ফোন দিয়ে দেখি ওই মূহুর্তে সংযোগ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

            সে যাই হোক, আমি যেকোনভাবে আপনার কাছে কিছু টিশার্ট পাঠাতে চাইছি। আপনি কি বলেন?

            পুনশ্চ: আপনাকে একটা মেইল করেছি।

মন্তব্য করুন