Categories
বাংলায় কম্পিউটিং

অভ্র

অমিক্রোনল্যাব (Omicronlab)

ওমিক্রনল্যাব নামের প্রতিষ্ঠানটিও বেশ ভালো নাম করেছে বাংলা কমপিউটিংয়ে অবদান রাখার ক্ষেত্রে। তাদের সাফল্যগাথার সাথে যে নামটি যুক্ত রয়েছে, তা হচ্ছে অভ্র। তাদের সবচেয়ে জনপ্রিয় উদ্ভাবন হচ্ছে বাংলা লেখার সফটওয়্যার অভ্র কীবোর্ড। তাদের বানানো সফটওয়্যারের সংক্ষিপ্ত বিবরণ এখানে তুলে ধরা হলো :

০১. অভ্র কীবোর্ড : ২০০৩ সালের ২৬ মার্চ ওমাইক্রনল্যাব সবার কাছে তুলে ধরে তাদের বানানো অসাধারণ বাংলা টাইপিং কীবোর্ড অভ্র। এ কীবোর্ড ব্যবহার করতে হলে বাংলা টাইপ জানার কোনো প্রয়োজন নেই। মোবাইলে মেসেজ মত করে এই কীবোর্ডের সাহায্যে বাংলা লেখা যায়। এই বাংলা লেখার সিস্টেমটিকে বলা হয় ফোনেটিক টাইপিং। এতে বাংলা টাইপ করার পদ্ধতি শিখতে খুব বেশি হলে আধা ঘণ্টা সময় নেবে। ইংরেজি টাইপ করতে যে সময় লাগে সেই সময়েই আপনি টাইপ করতে পারবেন বাংলায়। এতে ফোনেটিক পদ্ধতিতে বাংলা লেখার পাশাপাশি কিছু জনপ্রিয় বাংলা লে-আউট কীবোর্ডও দেয়া আছে, যাতে সবার ব্যবহার করতে সুবিধা হয়। এতে রয়েছে অভ্র ইজি, বর্ণনা, জাতীয় ও ইউনিবিজয় কীবোর্ড লে-আউট। ইউনিবিজয় দিয়ে বিজয়ের লে-আউটে টাইপ করার সুবিধা দেয়া হয়েছে। এতে আরো রয়েছে নিজের মতো করে লে-আউট পরিবর্তন করার সুবিধা ও অন-স্ক্রিন কীবোর্ড, যা দিয়ে মাউসের সাহায্যেও বাংলা লেখা যাবে। অভ্র দিয়ে ওয়ার্ড, রিচ টেক্সট, টেক্সট ফাইলসহ ফোল্ডার বা ফাইলের নাম বাংলায় লেখা যাবে। অভ্র ইউনিকোড সাপোর্টেড হওয়ায় এটি দিয়ে উইন্ডোজ মিডিয়া প্লেয়ারে গানের তালিকা বা প্লেলিস্ট বাংলায় লেখা যাবে ও আউটলুক ব্যবহার করে বাংলায় মেইল করাও যাবে। বাংলায় চ্যাট করার জন্য রয়েছে এর বিশেষ সুবিধা, তবে এক্ষেত্রে উভয় কমপিউটারে ইউনিকোড সাপোর্টেড বাংলা ফন্ট থাকতে হবে। এটি উইন্ডোজ ভিসতা ও ইউনিকোড ৫.০ সাপোর্ট করে।

০২. পোর্টেবল অভ্র কীবোর্ড : পোর্টেবল বা বহনযোগ্য সফটওয়্যার বলতে বোঝানো হয় সেই সব সফটওয়্যারকে, যা ইনস্টল করতে হয় না। এসব সফটওয়্যার এক ক্লিকে সরাসরি চালু হয়। তাই সেই সব সফটওয়্যার ইনস্টল করে পিসির গতি কমানোর হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। এসব সফটওয়্যার পেনড্রাইভে করে অন্য পিসিতে নিয়েও ইনস্টল না করেই কাজ করা যায়। পোর্টেবল অভ্র কীবোর্ডের সাহায্যে যে পিসিতে বাংলা লেখার কোনো ব্যবস্থা নেই, সে পিসিতে খুব সহজেই বাংলা লেখা যায়। পিসিতে বাংলা ফন্ট না থাকলেও কোনো সমস্যা নেই, এটি যখন চালু করা হয় তখন ‘সিয়াম রুপালি’ নামের একটি ভার্চুয়াল ফন্ট ব্যবহার করে বাংলা লিখতে সহায়তা করে। এটি হচ্ছে প্রথম বাংলা পোর্টেবল সফটওয়্যার।

০৩. অভ্র কনভার্টার : আসকি বা আনসি কোডের লেখা ইউনিকোডে রূপান্তর করার জন্য অভ্র বের করেছে একটি কনভার্টার। এটি দিয়ে বিজয়, আলপনা, প্রশিকা ও প্রবর্তন থেকে ইউনিকোডে রূপান্তর করা সম্ভব। টেক্সট কপি করে তা কনভার্টারের ক্লিপবোর্ড থেকে সরাসরি রূপান্তর করার ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও এটি প্লেইন টেক্সট (*.txt), রিচ টেক্সট (*.rtf),ওয়ার্ড ডকুমেন্ট (*.doc, *.docx), এক্সেস ডাটাবেজ (*.mdb) এ ফরমেটের ফাইলগুলো সাপোর্ট করে।http://www.omicronlab.com সাইট থেকে এ সফটওয়্যারগুলো ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে। সেই সাথে এ সাইটে দেয়া আছে অনেকগুলো মুক্ত বাংলা ফন্ট। এগুলোর মধ্যে রয়েছে- সিয়াম রুপালি, আপনালোহিত, বাংলা, আদর্শলিপি, সোলায়মানিলিপি, রুপালি, আকাশ, মিত্রামন, লিখন, সাগর, মুক্তি, লোহিত এবং একুশের বানানো কিছু ফন্টও পাওয়া যাবে এখানে। এগুলো হচ্ছে- একুশে আজাদ, দুর্গা, মহুয়া, গোধূলি, পুনর্ভবা, পূজা, সরস্বতী, শরিফা ও সুমিত।

সূত্র

By সাইফ দি বস ৭

পুরো নাম সাইফ হাসান। ছোটকাল থেকেই প্রযুক্তি, কম্পিউটার সম্পর্কিত বিষয়ে প্রচুর আগ্রহ এবং কৌতূহল। বর্তমানে কর্মরত আছেন উইডেভসের প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে। হিউম্যান সেন্টার্ড ডিজাইন, প্রোডাক্ট ম্যানেজমেন্ট এবং এজাইল প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্টেই ব্যস্ত থাকতে পছন্দ করেন।

মন্তব্য করুন